Azfar Hussain: Recover the radical politics of 1952

© Arif Hafiz
© Arif Hafiz

The crocodile-tear sentiment of the middle-class and liquid, emotion-filled nationalism smothered the radical face of the 1952 language movement in one way or another. That is why we need to return to history and raise this noise very loudly: just as the language movement at one time was a movement to establish our language rights, it was also ultimately a movement to fight for the rights of the country’s farmers, workers and the toiling masses.

We have to recover the radical politics of 1952
by Azfar Hussain

[Translated by Hana Shams Ahmed]
The crocodile-tear sentiment of the middle-class and liquid, emotion-filled nationalism smothered the radical face of the 1952 language movement in one way or another. That is why we need to return to history and raise this noise very loudly: just as the language movement at one time was a movement to establish our language rights, it was also ultimately a movement to fight for the rights of the country’s farmers, workers and the toiling masses. And today if you want to discover Ekushey February we need to widen the battle grounds, the battle in which the various ethnic persecutions of the present day Bangladesh becomes extremely important, the battle against our nationalist racism becomes very significant. My combative Ekushey wishes to everyone.

Jamaat-Shibir and their devotees (their tamed mass-media and their whole network of supporters) have returned. Their terrorism keeps taking more extreme forms. In the old and familiar manner. From the country’s national flag to the Shaheed Minar and even the country’s map and the common people have all by now become targets of their ruthless attacks, just like their very visible target is the Shahbagh movement itself.

Among the familiar modus operandi of Jamaat, one of the main techniques has been to depict the Shahbagh movement as well as the liberation movement as opposing of Islam, although the protesters have been repeatedly saying that there is no conflict between religion and the movement or with the war of liberation. I feel it is not enough to just say this.

But this return of Jamaat-Shibir once again proves the justification of the Shahbagh movement. A movement that is not the private property of a few blogger-leaders. A movement of hundreds of thousands of youth and the mass people. They have created an unprecedented moment, a burning opportunity at the pyre of history. But even after this, where do these anti-liberation and religion exploiting Jamaat-Shibir get their audacity from? This question must also be kept in mind. And if one avoids the responsibility and liability of the current Awami League government in this regard, it will only lead to danger.

If the country heads towards a civil war or if for some reason the armed forces are brought back, it will be Bangladesh’s pro-liberation common people who will be the most adversely affected. It means that we need to overcome the challenge on how to keep ‘effective’ pressure on the government without getting into the government’s pockets; but we really need an ingenious combat strategy at this moment. Instead of fighting amongst ourselves we need an overall, more powerful, national and international unity against our main opponent, that is, the evil, anti-liberation forces. Struggles are repeatedly initiated, the movement will not suspend and the people will win. Triumph to the people!

The old saying that I had once again learned as part of the experience of working directly with Shahid Janani Jahanara Imam on a regular basis, the old saying that never becomes old is: if any progressive movement falls into the grasps of the ruling class it no longer remains a movement, it ends up becoming some kind of an NGO. I remember those rejuvenating days of the Gonoadalot (Peoples’ Court) centered mass uprising. I was involved with the editing of a weekly magazine called ‘Shomoy’ at that time.  The magazine at which Jahanara Imam, at our request, used to write a weekly column titled ‘Mul Dharai Cholchi’ (Going along the mainstream) for many years. For this column, she had created a new meaning of the word ‘mainstream’ – it’s the people who can create mainstream politics by discarding the politics of the mainstream.

It also needs to be said that, what came out about Awami League from that column was that, just like BNP and Jatiyo Party, Awami League can never be an ally in the people’s movement against the war criminals and Jamaat. Swearing by Shahid Janani Jahanara Imam

I say, just like Jamaat-BNP, Awami League wants to sabotage this extraordinary Shahbagh movement. And they have already started sabotaging it, according to many of the protestors.

Original Bengali below:
মধ্যবিত্তের সিচকাঁদুনে সেনটিমেন্ট আর তরল ভাবাবেগে প্যাচপ্যাচ-করা জাতীয়তাবাদ বায়ান্নোর ভাষা আন্দোলনের রাডিকাল রূপটাকেই কোনো না কোনোভাবে ধামাচাপা দিয়ে রাখে। তাই আবারো ইতিহাসের কাছে ফেরা দরকার এবং জোরেশোরেই এই আওয়াজটা তোলা দরকারঃ ভাষা আন্দোলন একটা পর্যায়ে যেমন ছিল ভাষার অধিকার প্রতিষ্ঠার আন্দোলন, তেমনি তা চূড়ান্ত ভাবে ছিল দেশের কৃষক ও শ্রমিকসহ মেহনতি মানুষের অধিকার আদায়ের লড়াই। এবং আজকের দিনে একুশে ফেব্রুয়ারী-কে আবিষ্কার করতে গেলে আমাদের লড়াইয়ের ক্ষেত্রটাকেই তো বিস্তৃত করতে হয়, যে লড়াইয়ে বাংলাদেশে বিরাজমান বিভিন্ন ধরনের জাতিগত নিপীড়নের বিষয়টা দারুণভাবে গুরুত্বপূর্ণ হয়ে উঠে, যেমন লড়াইটা গুরুত্বপূর্ণ হয়ে উঠে আমাদের জাতীয়তাবাদী রেসিজম্-এর বিরুদ্ধেই। সকলকে একুশের লড়াকু শুভেচ্ছা।

জামাত-শিবির এবং তাদের অনুসারীরা (তাদের পোষা গণমাধ্যম সহ তাদের সমর্থকদের পুরা নেটওয়ার্কটাই) ফিরে এসেছে। জঙ্গী থেকে জঙ্গীতর হচ্ছে তারা। পুরানো পরিচিত কায়দাতেই। দেশের পতাকা থেকে শুরু করে শহীদ মিনারসহ এমনকি দেশের মানচিত্র এবং সাধারণ মানুষ সকলেই তাদের বর্বর আক্রমনের টার্গেটে পরিণত হয়েছে এর মধ্যেই, যেমন তাদের সাক্ষাৎ টার্গেট শাহবাগ আন্দোলন নিজেই। জামাত-শিবিরের পরিচিত কায়দাগুলোর মধ্যে প্রধান কায়দাটা হচ্ছে শাহবাগ আন্দোলনকে এবং এমনকি মুক্তিযুদ্ধকেও ইসলামের শত্রু হিসাবে চিহ্নিত করা, যদিও আন্দোলনকারীরা বারবার বলার চেষ্টা করেছেন যে, আন্দোলনের সঙ্গে এবং মুক্তিযুদ্ধের সঙ্গে এদেশের মানুষের ধর্মচর্চার কোনো বিরোধ নাই। বোধ করি শুধু এভাবে বলাটাই যথেষ্ট নয়। তবে জামাত-শিবিরের এইভাবে ফিরে আসাটা আবারো প্রমাণ করে শাহবাগ আন্দোলনের ন্যায্যতাকেই, যে-আন্দোলন গুটি কয়েক ব্লগার-নেতার সম্পত্তি নয় মোটেই, যে আন্দোলন লাখো তরুণের এবং লাখো জনতার, যারা তৈরি করেছেন ইতিহাসের চুল্লিতে এক অভূতপূর্ব গনগনে সম্ভাবনার মুহূর্ত। কিন্তু তারপরও কোত্থেকে সাহস পায় এই স্বাধীনতাবিরোধী এবং ধর্মের অপব্যাবহারকারী জামাত-শিবির? এই প্রশ্নটাও মাথায় রাখতে হবে। এবং এই প্রসঙ্গে বর্তমান আওয়ামী লীগ সরকারের দায়ভার ও দায়িত্বের বিষয়টা এড়িয়ে গেলে বিপদ বাড়বেই, কেননা গৃহযুদ্ধের দিকে দেশটা এগিয়ে গেলে কিংবা কোনো কারণে সামরিক বাহিনীর প্রত্যাবর্তন ঘটলে বাংলাদেশের মুক্তিকামী সাধারণ মানুষের ক্ষতি হবে সবচাইতে বেশি। অর্থাৎ সরকারের পকেটে না গিয়ে কি করে সরকারের উপর ‘ইফেকটিভ’ চাপ রাখা যায় সেই চ্যালেঞ্জটাকেই মোকাবেলা করা দরকার; তবে আসলেই এই মুহূর্তে আরো নিপুণ রণকৌশল চাই। নিজেদের মধ্যে রেষারেষির বদলে চাই আমাদের প্রধান প্রতিপক্ষের বিরুদ্ধে অর্থাৎ স্বাধীনতাবিরোধী অপশক্তির বিরুদ্ধে আমাদের বৃহত্তর, আরো শক্তিশালী, এমনকি জাতীয় এবং আন্তর্জাতিক ঐক্য। সংগ্রাম শুরু হয় বারবারই, আন্দোলন থেমে থাকবে না এবং জনতার জয় হবেই। জয় জনতা।

শহীদ জননী জাহানারা ইমামের সঙ্গে দিনের পর দিন সরাসরি কাজ করার অভিজ্ঞতা থেকে যে পুরাতন কথাটা নতুন করে শিখেছিলাম এবং যে-কথাটা পুরাতন হয়েও হয়ত পুরাতন হয় নাই, সেটা হচ্ছে এইঃ যে কোনো প্রগতিশীল আন্দোলন কোনো না কোনো ভাবে শাসক শ্রেণির খপ্পরে পড়লেই তা আর আন্দোলন থাকে না, তবে তা হয়ত হয়ে উঠতে এক ধরনের এনজিও। মনে পড়ে, সেই গনআদালতকেন্দ্রিক গণজাগরণের বলকানো দিনগুলোতে _সময়_ নামের একটি সাপ্তাহিক পত্রিকার সম্পাদনার সঙ্গে যুক্ত ছিলাম, যে পত্রিকায় আমাদের অনুরোধেই জাহানারা ইমাম “মুল ধারায় চলেছি” নামে একটা সাপ্তাহিক কলাম লিখেছেন বহুদিন, যে-কলামে তিনি “মূল ধারা” কথাটার একটা নতুন অর্থ তৈরি করছিলেন এই বুঝিয়ে যে, শাসক শ্রেণির রাজনীতিকে প্রত্যাখ্যান করেই জনগণই তৈরি করতে পারেন মূলধারার রাজনীতি। এও বলা দরকার, ওই কলাম থেকেই আওয়ামী লীগ সম্পর্কে যে কথাটা বেরিয়ে এসেছিলো সেটা ছিল এই যে, বিনপি এবং জাতীয় পার্টির মতোই আওয়ামী লীগ কখনই যুদ্ধাপরাধবিরোধী এবং জামাতবিরোধী জনগণের আন্দোলনের মিত্র হতে পারে না। শহীদ জননী জাহানারা ইমামের কসম, জামাত-বিএনপি’র মতোই আওয়ামী লীগও এই অভূতপূর্ব শাহবাগ আন্দোলনের বারোটা বাজাতে চায়। এবং এমনকি বাজিয়েছোও, বেশ কিছু সাধারণ আন্দোলনকারীর মতেই।

Soundcloud version

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s