Faruk Wasif: Now will you have time? Now will you finally listen?

Source: Facebook
© Taslima Akhter

Now will you have time? Now will you finally listen?

by Faruk Wasif, Translated from Bengali for AlalODulal.org by Tibra Ali

We are not slave-owners, we are a manager country of slavery. Our labour force is slave labour, our farmers are debt slaves and serfs. The big capitals exploit the labour in their own countries while they plunder the labour from countries like ours. Our wealth, natural resources and manpower; Our bodies, language and history, all of it is subservient to small capitals working for big capitals. This international family of big and little brothers is called imperialism.

In a country where slavery is the major sector, everything there needs to be arranged around the business of slavery. Its laws, its politics, its institutions, its social life, culture, even its literature, dreams and aspirations are slavery friendly. This slavery is fueled by these structures, this killing-machine is inherent in its nature.

The economic policies are set up in such a way that the people, devoid of choice, are forced to sell their labour at rates that only befit slaves. So that the farmer doesn’t get the dues for his crops, so that the vicious cycle and conspiracy of microcredit keeps them forever dependent, so that the middle class can get their clothes-rice-services at an affordable rate; the state ensures this. The media keeps most under control here, while for the defiant few there are the RAB, hired-goons, and the military.

Whatever the youth of the middle-class may say, but our families are the beneficiaries of this system. This is a very old habit. This country was never one single class. We’ve always had racism, division between land-owners and peasants, division between high-born and low-born, division between Sanskrit-Farsi-English-Bengali.

Twice the country changed hands, but this society of divisive enmity didn’t change. The politics of change never found its footing here.

That is why I am not in favour of cheap humanistic protestations. The first duty is to change this slave economy into an economic system of production and equitable distribution. In order to keep the garments sector afloat and to make it self-sustaining there is no way but to change our industrial laws, labour laws, pay-scales and the justice system. The plunderers will go back to their countries after they are done plundering; but for those of us who’ll stay here it is for our sake that we need to start working to save our industries and our people.

There is only one way of avenging the murders of so many innocents: to hang the owners and the killing-machine with the same rope. Nothing would be gained if only one goes, it will regenerate itself from the other. Without punishing the politics and the justice system that make massacres like this one possible, all that we’ll have will be the petty bickering of the two ladies of the Government and the Opposition.

We don’t need that.

Made in Bangladesh
© Dhaka Tribune

এইবার আপনাদের সময় হবে? এইবার আপনারা শুনবেন?

ফারুক ওয়াসিফ

আমরা দাসমালিক না, আমরা দাসব্যবসার ম্যানেজার রাষ্ট্র। আমাদের শ্রমিক শ্রমদাস, কিষাণী ঋণদাস, কিষাণ ভূমিদাস। বড় পুজিঁবাদ নিজ দেশে শ্রমশোষণ করলেও আমাদের মতো দেশে করে শ্রমলুণ্ঠন। আমাদের সম্পদ, প্রকৃতি আর মানুষ; আমাদের দেহ, ভাষা, ইতিহাস সবই বড় পুঁজির খাতিরে ছোটো পুঁজির সেবায়েত। এই বড় ছোটো দুই ভাইয়ের আন্তর্জাতিক সংসারটার নাম সাম্রাজ্যবাদ।

দাস ব্যবসা যে রাষ্ট্রের প্রধান খাত, সেই রাষ্ট্রের সবকিছুকেই দাসব্যবসামুখী করে সাজাতে হয়। তার আইন, তার রাজনীতি, তার প্রতিষ্ঠান, তার সংস্কৃতি-সমাজ এমনকি তার সাহিত্য ও স্বপ্নও দাসব্যবসা-বান্ধবই হয়। এই দাসব্যবসা কাঠামোগত শক্তিতে চলে, এই মারণকল তার সহজাত।

যাতে নিরুপায় মানুষ যাতে দাসসুলভ দামে শ্রম বেচতে বাধ্য হয়, অর্থনীতির বিধিব্যবস্থা সেভাবে সাজানো হয়। যাতে কৃষক ফসলের দাম না পায়, যাতে ক্ষুদ্রঋণের চক্র আর চক্রান্ত তাদের পরনির্ভরশীল রাখে, যাতে মধ্যবিত্তরা সস্তায় চাল সেবা কাপড় পায়; রাষ্ট্র তার বন্দোবস্ত করে। এখানে অধিকাংশকে বশে রাখে মিডিয়া আর অল্পকতেক প্রতিবাদীর জন্য থাকে র‌্যাব–মাস্তান-মিলিটারি।

মধ্যবিত্ত তরুণ-তরুণীরা যাই বলুক, আমাদের পরিবার এই ব্যবস্থার বরকতভোগী। সুদীর্ঘকালের অভ্যাস। এদেশে এক জাতি কোনোদিন ছিল না। ছিল বর্ণভেদ, জমিদার-প্রজা ভেদ, আশরাফ-আতরাফ ভেদ, সংস্কৃত-ফারসি-ইংরেজি-বাংলার ভেদ।

দুইবার রাষ্ট্র বদলালো, এত ভেদাভেদ বিদ্বেষের সমাজটা একবারো বদলালো না। বদলের রাজনীতিটা দাড়ালো না।

আমি তাই পুতুপুতু মানবতার প্রতিবাদের পক্ষে নই। প্রথম কর্তব্য দাসব্যবসার অর্থনীতিকে উতপাদন আর সম-বিনিময়ের অর্থনীতিতে বদলানোর কাজ করা। দর্জিশিল্পকে টিকিয়ে রাখা এবং একে স্বয়ংস্বম্পূর্ণতা দেয়ার স্বার্থে শিল্প আইন, শ্রম আইন, মজুরিকাঠামো এবং বিচারব্যবস্থাকে বদলানো ছাড়া কিছুতেই কিছু হবার নয়। লুটেরারা লুট শেষে বিদেশে চলে যাবে; যারা থাকব তাদের স্বার্থেই শিল্প আর মানুষ বাঁচাতে নামতে হবে।

এত এত মানুষের নৃশংস খুনের বদলা একটাই: এক দড়িতে মালিক ও তার মারণকলের ফাঁসি। একটি গেলে লাভ নাই, অন্যটি নিজেকে পুণরুতপাদিত করে নেবে। যে রাজনীতি ও বিচারব্যবস্থা এই হত্যাযজ্ঞ সম্ভব করে, তার শাস্তি ছাড়া সবই আপা-ভাবীর পুটুরপাটুর। সেসবে আমাদের কাজ নাই।

4 comments

  1. I can bet my soul — even if another 10,000 poor and powerless people die in Bangladesh in the next three months in such man-made disasters (because of some rich and powerful people’s corruption), Nothing, ABSOLUTELY NOTHING will happen to the benefit of the poor, marginalized people. No government, NGOs, civil society and people will do nothing substantial to change the system, i.e., punish the corrupt and guilty people. They are, after all, their own people. The poor and marginalized (as if) come from the Mars or some distant planet! Bangladesh e bhabei cholbey aro bahu bahu bahu bachhar — keu kichhui badlate parbe na.
    Taj Hashmi

    Date: Thu, 25 Apr 2013 15:56:02 +0000
    To: taj_hashmi@hotmail.com

    • I fully agree with Taj Hashmi, with its self-seeking middle class and a prostiuted backboneless intelligensia that feed on and thrive from the muck of divisive politics Bangladesh is caught in a quagmire of moral abyss and thus is unchangeable..

  2. কাঠামো বদলালে কাঠামোই থাকে। মানুষের জীবন ও তাকে ঘেরা সমাজ ও অর্থনীতি একটি জটিল ও ডাইনামিক সিস্টেম। তাকে প্রচলিত বা বদলানো যে কাঠামোতেই পোরা হোক না কেনো, ফাটালে ভেতরে কেবল কাঠবাদামই মেলে।

    কাঠামোর কাঠগুলো স্ট্যাটিক। আর লিবারেল গণচেতনার জোয়ার হলো সাময়িক। আমাদের সমাধান হতে হবে সাস্টেনেবল ও ডাইনামিক।

  3. Faruk Wasif: নো পাসারান, ছাড়ান নাই। এবার একটা হেস্তনেস্ত দরকারই দরকার। সম্মিলিতভাবে আগামি মে দিবসে সব মিছিল বিজেএমইএ’র দিকে নেওয়া যায় না? সব ধিক্কার, সব জুতা-স্যান্ডেল, সব চিতকার পাপের ভবন, খুনীরক্ষা ভবন, বেআইনী ভবনের প্রাপ্য না? ঘাতকশক্তির বিরুদ্ধে ঘটানো যায় না রক্ষাশক্তির জাগরণ? উদ্ধার কাজের অখ্যাত বীরদের সেদিন নেতা করা যায় না?

    শ্রমিকের জীবনের বিনিময়ে যে ছুটি আপনি ভোগ করেন, সেই ছুটি অধিকাংশ শ্রমিকই পায় না। এবারের ছুটির প্রতিদান একটাই, তাদেরই দান তাদেরই ফিরিয়ে দেওয়া। যদি না দেন, তাহলে মে দিবসের ছুটিতে অন্তহীন হিন্দি সিরিয়ালই দ্যাখেন, নাটকের জন্য বরাদ্দ অশ্রু অন্তহীন গণহত্যার জন্য ঝরায়েন না। প্রতিবাদ ছাড়া এই কান্না এই ছুটি এই সস্তা পোশাক হারাম। এই পোশাক যেন সেদিন আপনার গায়ে তাজরীনের আগুনের জ্বালা ধরায়। খুনী ও লুটেরা মালিকদের হাত থেকে পোশাকশিল্প রক্ষার ডাকই হোক এবারের মে দিবসের মরণডাক।

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s